ইরাকে রাজধানী বাগদাদে নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে নিহত ১৪৯ বিক্ষোভকারী

noashad

ইরাকে বিক্ষোভ দমনে নিরাপত্তা বাহিনীর মাত্রাতিরিক্ত শক্তি ব্যবহার এবং তাজা গুলির কারণে ১৪৯ বিক্ষোভকারী নিহত হয়েছে।

দেশটির সরকারি কমিটির এক তদন্ত প্রতিবেদনে এমন তথ্যই পাওয়া গেছে।ওই প্রতিবেদনে বলা হয়, ৭০ শতাংশ বিক্ষোভকারীর মৃত্যু হয়েছে মাথায় কিংবা বুকে গুলিবিদ্ধ হয়ে। যেখানে গুলি করার কোনো নির্দেশ ছিল না। এর জন্য উর্ধ্বতন কমান্ডারদের দায়ী করা হলেও প্রধানমন্ত্রী এবং অন্যান্য শীর্ষ কর্মকর্তাদেরকে দোষারোপ করা হয়নি।

দেশটিতে ছড়িয়ে পড়া অস্থিরতা তদন্তে এক প্রতিবেদনে এমন তথ্যই প্রকাশ করেছে সরকারি কমিটি। প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ৭০ শতাংশ বিক্ষোভকারীর মৃত্যু হয়েছে মাথায় কিংবা বুকে গুলিবিদ্ধ হয়ে। বেকারত্ব বেড়ে যাওয়া, অপ্রতুল সরকারি সেবা এবং দুর্নীতিকে কেন্দ্র করে গত ১ অক্টোবর থেকে ইরাকের রাজধানী বাগদাদে বিক্ষোভ শুরু হয়ে আরো অনেক শহরে তা ছড়িয়ে পড়ে। নিরাপত্তা বাহিনী বিক্ষোভ দমন করতে অগ্রসর হলে তাদের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের তুমূল সংঘর্ষ বাধে। ইরাকি তদন্ত প্যানেল তাদের প্রতিবেদনে বলেছে, ‘কমিটি তদন্ত করে দেখেছে যে, বিক্ষোভের সময় কর্মকর্তা এবং কমান্ডাররা তাদের বাহিনীর ওপর নিয়ন্ত্রণ হারিয়েছেন। ওপর মহল থেকে বিক্ষোভকারীদের ওপর নিরাপত্তা বাহিনীর গুলি চালানোর কিংবা তাজা গুলি ব্যবহারের সরকারি কোনো নির্দেশ আদৌ ছিল না।’

বিক্ষোভে রক্তক্ষয়ের ঘটনা খতিয়ে দেখতে ইরাকের প্রধানমন্ত্রী আদেল আব্দুল মাহদি ওই কমিটি প্রতিষ্ঠা করেন। তিনি মন্ত্রিসভাকে ঢেলে সাজানোর এবং ঘুষ দুর্নীতির বিরুদ্ধে লড়াইসহ অন্যান্য সংস্কারেরও প্রতিশ্রুতি দেন।

Leave a Reply

This site uses Akismet to reduce spam. Learn how your comment data is processed.